অবশেষে চিটাগং ভাইকিংসে মুশফিক!

0
15
মুশফিকুর রহিম

বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের প্লেয়ার ড্রাফট হবে আজ রোববার। ড্রাফটে দেশি খেলোয়াড়দের মূল আকর্ষণ ছিলেন সম্ভবত মুশফিকুর রহিম। দারুণ ফর্মে আছেন তিনি। বিপিএলের সর্বোচ্চ তিন রান সংগ্রাহকের একজন। কে পাবে মুশফিককে। সেই প্রশ্নের উত্তরের জন্য ড্রাফট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হলো না। অপেক্ষা করতে দিলো না চিটাগং ভাইকিংস। বিপিএলে অংশ নিতে যে দল রাজী হচ্ছিল না তারাই ড্রাফটের আগে ‘রিটেইন’ ক্রিকেটার হিসেবে পেয়ে গেলো মুশফিককে।

রাজশাহী কিংস ছেড়ে দেওয়ার পর মুশফিককে নেওয়ার দৌড়ে শুরুতে এগিয়ে ছিল সিলেট সিক্সার্স। শোনা গিয়েছিল, দলটি তাদের আইকন ক্রিকেটার হিসেবে নিতে পারে মুশফিককে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটি হয়নি। মুশফিকের বদলে নিজেদের আইকন ক্রিকেটার হিসেবে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান লিটন দাসের নাম নিশ্চিত করে সিক্সার্স। গত বছর সিলেটের আইকন ক্রিকেটার ছিলেন সাব্বির রহমান।

এবারের বিপিএলে চিটাগাং ভাইকিংসের খেলা নিয়েই ছিল নানা অনিশ্চয়তা। বিপিএল থেকে নিজেদের নামও প্রত্যাহার করে নিতে চেয়েছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। তবে শেষ পর্যন্ত আসন্ন বিপিএল খেলার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। ভাইকিংস ছাড়া বাকি সব দলেরই আইকন ক্রিকেটার নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় মুশফিককে ভাইকিংস শিবিরে দেখার বড় সম্ভাবনা তৈরি হয়। এরপর তারা মুশফিককে ‘রিটেইন’ খেলোয়াড় হিসেবে দলে টানার আবেদন করে। তাদের আবেদন অনুমোদন করেছে বিপিএল গর্ভনিং কাউন্সিল।

মুশফিককে পেতে ঢাকা ডায়নামাইটসের আগ্রহটা বেশি ছিল সম্ভবত। সেজন্য হয়তো তারা ড্রাফটের অপেক্ষাও করছিল। ডায়নামাইটস শিবিরের আইকন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান চোটের কারণে লম্বা সময়ের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন। বিপিএল খেলাটা এখনও নিশ্চিত নয় এই অলরাউন্ডারের। সে ক্ষেত্রে দলে সাকিবের বিকল্প হিসেবে একজন সিনিয়র ক্রিকেটার পাওয়ার তাগিদ থেকেও মুশফিককে দলে ভেড়ানোর সম্ভাবনা ছিল ঢাকা। কিন্তু সে সম্ভাবনার জল ঢাললো চিটাগং ভাইকিংস।

দেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে একমাত্র ‘এ+’ ক্যাটগারিতে ছিল মুশফিকুর রহিম। তার ভিত্তি মূল্য ছিল ৪০ থেকে ৬০ লাখ টাকা। তবে চিটাগং কত মূল্যে মুশফিককে পেয়েছে তা জানা যায়নি।
// সুত্রঃ সমকাল//

Leave a Reply