অভিষেকেই নাঈমের ৫ উইকেট প্রথম ইনিংসে ৭৮ রানে এগিয়ে বাংলাদেশ!

0
9

ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ৩২৪ রান করার পর শুরুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসে বড় ধাক্কা দেয় বাংলাদেশ। সেই ধাক্কা আর সামলে উঠতে পারেনি সফরকারীরা। মাঝে এবং শেষে অবশ্য ঝড়ো ব্যাটিংয়ে রান কিছু বাড়িয়ে নিয়েছে তারা। কিন্তু প্রথম ইনিংস থেকে ৭৮ রানের লিড পেয়েছে সাকিব আল হাসানের দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তাদের প্রথম ইনিংসে ২৪৬ রানে অলআউট করে দিয়েছেন সাকিব-নাঈমরা।

নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে ভালো শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পরে দুই রানের ব্যবধানে তাদের ৩ উইকেট তুলে নেন সাকিব-তাইজুল। পরের দুই উইকেট তুলে নেন অভিষেক হওয়া স্পিনার নাঈম হাসান। এরপর টি২০ গতিতে খেলা হেটমায়ারকে ফেরান মিরাজ। পরের দুই উইকেট আবার দখলে নেন নাঈম। এরপর জমেল ওয়ারিক্যানকে বোল্ড করে অভিষেক ম্যাচেই ৫ উইকেট নেন তিনি। তবে ৪৮ রান করে ক্রিজে আছেন উইকেটরক্ষক ডাউরিচ।

চট্টগ্রামে ক্যারিবিয়দের প্রথম ইনিংসে ওপেনার কিয়েরন পাওয়েলকে প্রথমে আউট করেন তাইজুল ইসলাম। এরপর এক ওভারে দুই উইকেট তুলে নেন সাকিব। প্রথমে শাই হোপকে করেন বোল্ড। এরপর ব্রাথওয়েটকে স্লিপে ক্যাচে পরিণত করেন। মধ্যে একটি ক্যাচও ফেলেছেন মুশফিক। শুরুর ২৯ রানে কোন উইকেট না হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩১ রানের মাথায় হারায় ৩ উইকেট।

এরপর আমব্রিস ও চেজ করেন ৪৬ রানের জুটি। নিজের ৩১ রানে নাঈমের বলে শট লেগে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন চেজ। এর পরের ওভারে এসেই আবার উইকেট নেন ডানহাতি এই স্পিনার। ১৯ রানে ব্যাট করা আমব্রিসকে ফেরান তিনি। এরপর ৪৭ বলে পাঁচটি চার ও চারটি ছক্কায় ৬৩ রান করে মিরাজের বলে ফেরেন হেটমায়ার। পরে ব্যাট করতে আসা দেবেন্দ্র বিশু ও কেমার রোচ ফেরেন নাঈমের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে।

এর আগে মুমিনুলের সেঞ্চুরি আর শেষটায় তাইজুল-নাঈমের দৃড়তায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে প্রথম দিন শেষে ৩১৫ রান তোলে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনের শুরুতে তার সঙ্গে মাত্র ৯ রান যোগ করলে পারেন তাইজুল-নাঈমরা। নাঈম হাসানের বিদায়ে ভাঙে তাদের ৬৫ রানের জুটি। শেষ পর্যন্ত ৩২৪ রানেই থামে বাংলাদেশের ইনিংস।

আগের দিন অপরাজিত থাকা তাইজুল ক্যারিয়ার সেরা ৩৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। এছাড়া অভিষেক হওয়া নাঈম হাসান ২৬ রানে আউট হন। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে আসা মুস্তাফিজুর তিন বল খেলে কোন রান না করে ফিরে যান।

এর আগে বাংলাদেশ দলের হয়ে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১২০ রানের ইনিংস খেলেন মুমিনুল হক। ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। এছাড়া ইমরুল কায়েস ৪৪, সাকিব আল হাসান ৩৪ রান করেন। মোহাম্মদ মিঠুন খেলেন ২০ রানের ইনিংস।

একমাত্র মুনিনুল দলের হয়ে ভালো ব্যাটিং করেন। মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ ক্রিজে এসে দাঁড়াতেই পারেননি। ওদিকে সাকিব-ইমরুলরা সেট হয়ে ফিরে যান। তবে শেষটায় তাইজুল-নাঈমের ৫০ ছাড়ালো নবম উইকেট জুটিতে তিনশ’ ছাড়ায় বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: (প্রথম দিন শেষে ৩১৫/৮) ৯২.৪ ওভারে ৩২৪ (নাঈম ২৬, তাইজুল ৩৯*, মোস্তাফিজ ০; রোচ ১৭-২-৬৩-১, গ্যাব্রিয়েল ২০-৩-৭০-৪, চেজ ১১-০-৪২-০, ওয়ারিক্যান ২১.৪-৬-৬২-৪, বিশু ১৫-০-৬০-১, ব্র্যাথওয়েট ৮-১-১৯-০)
// সুত্রঃ সমকাল/ যুগান্তর//

Leave a Reply