গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ালে সাধ্যমত প্রতিবাদ: মির্জা ফখরুল

0
8
সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল। ছবি: সংগৃহীত

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি মেনে নেয়া হবে না। সবার আপত্তি সত্ত্বেও সরকার অন্যায়ভাবে গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলে বিএনপি সাধ্যমতো এর তীব্র প্রতিবাদ করবে।

রোববার বেলা ১২টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে দলটির বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে এক যৌথসভা করেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে বিএনপি সাধ্যমতো এর প্রতিবাদ করবে। একই সঙ্গে অন্যায়ভাবে চাপিয়ে দেয়া এই মূল্যবৃদ্ধি মেনে নেয়া হবে না।

দেশে একদলীয় শাসন বিরাজ করছে জানিয়ে তিনি বলেন, আজকে দেশে একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে। দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার, কথা বলার অধিকার নেই। এ রকম একটি অবস্থায় আমরা স্বাধীনতা দিবস পালন করতে যাচ্ছি।

‘আজকে এই দেশের মানুষ কোনো বিচার পায় না। কোনো ইনসাফ নেই। এ দেশের মানুষ নিরাপদ নয়। এটিই আশা করি যে মানুষের গণতন্ত্রের জন্য যে চিরন্তন সংগ্রাম, সেই সংগ্রাম বাংলাদেশের মানুষ করছে। ইনশাআল্লাহ, তারা অবশ্যই বিজয়ী হবে’-যোগ করে বিএনপি মহাসচিব।

৩০ ডিসেম্বর ভোটের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, স্বাধীনতার দীর্ঘ সময় পর হলেও দেশের মানুষ সত্যিকারের স্বাধীনতা পায়নি। ৩০ ডিসেম্বরে বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন হয়নি এটি দেশের মানুষ জানে।

পরে মির্জা ফখরুল ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সাত দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। তিনি জানান, মহান স্বাধীনতা দিবসকে যথাযথ মর্যাদায় পালন করতে আমরা সাত দিনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছি। এর মধ্যে তিন দিন বিএনপির, আর চার দিন দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে পালন করা হবে।

মির্জা ফখরুল জানান, অনুমতি পাওয়া গেলে ২৫ মার্চ বিকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন অথবা মহানগর নাট্যমঞ্চে আলোচনাসভা এবং জাসাসের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। ২৬ মার্চ সকালে দলীয় কার্যালয় এবং সারা দেশে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। ওই দিন বেলা ১১টায় জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদনসহ ফাতেহা পাঠ করা হবে।

২৭ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হবে উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘প্রশাসনের অনুমতি পেলে র‌্যালির সময় নির্ধারণ করা হবে। এর বাইরে বাকি চার দিনের কর্মসূচিতে ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ অন্যরা নিজেদের সুবিধামতো পালন করবে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ।

// সূত্রঃ যুগান্তর/ জাগো নিউজ২৪//

Leave a Reply