ঘরে ঘরে গিয়ে নৌকায় ভোট চান, নেতাদের বললেন-শেখ হাসিনা

0
22
বক্তব্য দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা -বাসস

সরকারি খরচে নির্বাচনী প্রচার ও জনসভা করার যে অভিযোগ বিএনপি তুলেছে, তার জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তিনি একটি দলের সভাপতি। দলের পক্ষে তিনি ভোট চাইতেই পারেন। এটি তার রাজনৈতিক অধিকার।

আগামী নির্বাচন সামনে রেখে মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চাওয়ার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেছেন, মানুষকে বুঝাতে হবে যে, একমাত্র নৌকায় ভোট দিলেই দেশের উন্নয়ন হয়, অগ্রগতি হয়। মানুষের কল্যাণ হয়। নৌকা আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছে। নৌকা উন্নয়ন দিয়েছে। নৌকায় ভোট দিয়েই মানুষ উন্নয়ন পেয়েছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে। আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। এগিয়ে নিয়ে যাব। আমরা উন্নয়নশীল দেশ হয়েছি। ইনশাআল্লাহ উন্নত দেশেও পরিণত হতে পারব।

শনিবার গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই বাংলাদেশের মানুষের জীবন উন্নত হবে। তারা খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, স্বাস্থ্য ও শিক্ষা পাবে। একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। জাতির পিতার নেতৃত্বে যুদ্ধ করে আমরা দেশকে স্বাধীন করেছি। আমরা বিজয়ী জাতি। মুক্তিযুদ্ধ করে বিজয় অর্জন করেছি। বিজয়ী জাতি হিসেবেই আমরা বিশ্বদরবারে মাথা উঁচু করে চলব। আমরা কারও কাছে মাথা নত করব না।

২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সেবক হিসেবে মানুষের কল্যাণ ও উন্নয়নে কাজ করে চলছে। ২০২০ সালের মধ্যে দেশকে আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত দেশে পরিণত করতে পারব। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী তথা ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ অবশ্যই উন্নত ও সমৃদ্ধশালী দেশে পরিণত হবে।

প্রধানমন্ত্রীর সূচনা বক্তব্যের পর তার সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে দেশের সর্বশেষ আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক এবং দলের সাংগঠনিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ সময় ১৭ এপ্রিল মুজিব নগর দিবস, মহান মে দিবস এবং বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দলীয় কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হয়। সুত্রঃ সমকাল।

Leave a Reply