ফেসবুকের বিরুদ্ধে বিনিয়োগকারীদের মামলা!

0
6

ফেসবুকের পাঁচ কোটির বেশি গ্রাহকের তথ্য বেহাত হওয়ার খবর প্রকাশ পেয়েছে। এ নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্টটি। এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির বিনিয়োগকারীরা ফেসবুকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। খবর সিএনএন।

গত মঙ্গলবার ফেসবুক অংশীদারদের পক্ষে ফ্যান ইউয়ান নামের একজন যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকোর একটি ফেডারেল আদালতে মামলা করেছেন। কতজন অংশীদার এ মামলার বাদী, তা প্রকাশ করা হয়নি। তবে ২০১৭ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ১৯ মার্চ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটিতে শেয়ার রয়েছে, এমন অংশীদাররা এ মামলার বাদী বলে জানা গেছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, কোম্পানির নীতি সম্পর্কে ফেসবুক মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য সরবরাহ করেছে। সম্মতি ছাড়া লাখ লাখ গ্রাহকের তথ্য ফেসবুক তৃতীয় পক্ষকে ব্যবহারের অনুমতি দিলেও তা প্রকাশ করা হয়নি। ফেসবুকের ভুলের জন্য কোম্পানির শেয়ারমূল্যে ব্যাপক ধস দেখা দিয়েছে। এর ফলে বাদীপক্ষ ও অন্যরা ব্যাপক লোকসানের মুখে পড়েছেন।

ফেসবুকের ডেপুটি জেনারেল কাউন্সেল পল গ্রেওয়াল বলেন, ফেসবুক তার নীতিমালা অনুসরণ করে সব কাজ করে থাকে। গ্রাহক তথ্যের সুরক্ষা দিতে তারা অঙ্গীকারবদ্ধ। এজন্য তারা প্রয়োজনীয় সবকিছু করতে রাজি আছেন।

গত শনিবার নিউইয়র্ক টাইমস ও লন্ডনের অবজারভার তাদের প্রতিবেদনে জানায়, যুক্তরাজ্যভিত্তিক রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা ২০১৪ সাল থেকে ফেসবুকের পাঁচ কোটির মতো গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য পেয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে ফেসবুক এসব তথ্য মুছে ফেলার দাবি জানিয়ে এলেও তা মুছে ফেলেনি প্রতিষ্ঠানটি। তবে গত শুক্রবার ফেসবুক জানায়, ট্রাম্প শিবিরের প্রচারণার জন্য পরিচিত একটি ডাটা কোম্পানি তাদের বেশকিছু গ্রাহক তথ্যে প্রবেশাধিকার দিয়েছিল।

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে ফেসবুক গ্রাহকদের তথ্য সংগ্রহ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ফেসবুক গ্রাহকদের তথ্য বেহাত হওয়ার খবর প্রকাশ পেলে বিভিন্ন দেশের আইনপ্রণেতারা ও সাধারণ জনগণ বিষয়টি নিয়ে সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়ে আসছেন। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক নেতারা ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা বিষয়ে প্রশ্নের জবাব দিতে ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

ফেসবুক গ্রাহকের তথ্য ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার কাছে কীভাবে গেছে, এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে মার্ক জাকারবার্গকে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তলব করেছে দেশটির পার্লামেন্টারি মিডিয়া কমিটি। এ কমিটির চেয়ারম্যান ডোমিয়ান কলিন্স বলেন, গ্রাহকের তথ্য ফেসবুক কীভাবে ব্যবহার করে, এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা তাদের কাছে ভুল তথ্য দিয়েছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেটিক দলের সিনেটররা এ বিষয়ে সাক্ষ্য দিতে মার্ক জাকারবার্গের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সিনেটর ডায়ান ফেইনস্টাইন বলেন, ফেসবুক সিইওর উচিত কংগ্রেসের সামনে হাজির হয়ে গ্রাহক তথ্যের ব্যবহার সম্পর্কে বক্তব্য পেশ করা।

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা বিষয়ে তথ্য প্রকাশের পরই ফেসবুকের শেয়ারমূল্যে ব্যাপক ধস দেখা গেছে। গত মঙ্গলবার এর শেয়ারদর ৩ শতাংশ কমে গেছে। এর আগের দিন অর্থাত্ সোমবার প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারমূল্য ৭ শতাংশ কমেছে, যা ২০১৪ সালের পর সবচেয়ে বড় পতন।

এরই মধ্যে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার পরিচালনা পর্ষদ এর সিইও অ্যালেকজান্ডার নিক্সনকে বরখাস্ত করেছে।

গত মঙ্গলবার অ্যালেকজান্ডার নিক্সনকে উদ্ধৃত করে ব্রিটেনভিত্তিক চ্যানেল ফোর নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জেতাতে তার প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। তার প্রতিষ্ঠানটি নির্বাচনের সময় সব তথ্য নিয়ন্ত্রণ করেছে।

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার পরিচালনা পর্ষদ এক বিবৃতিতে জানায়, অ্যালেকজান্ডার নিক্সনের বক্তব্য একান্তই তার নিজের, এটি প্রতিষ্ঠানের বক্তব্য নয়। তাকে বরখাস্তের ফলে এটা স্পষ্ট হয়েছে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা কোনো ধরনের ভুল করেনি, প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে এমনটাই বলা হয়েছে। এদিকে ট্রাম্প শিবিরের পক্ষ থেকে বলা হয়, তারা ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার তথ্য ব্যবহার করেনি।
সুত্রঃ বণিক বার্তা

Leave a Reply