মেক্সিকো সীমান্তে সেনা পাঠাবেন ট্রাম্প

0
4
US President Donald Trump hosts a working lunch with the Baltic heads of state on April 3, 2018, in the Cabinet Room of the White House in Washington, DC. / AFP PHOTO / Olivier Douliery

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলে মেক্সিকোর সঙ্গে সীমান্ত নিরাপদ করতে অচিরেই সেখানে সেনা পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউসে দেয়া এক বক্তব্যে তিনি বলেন, এখন থেকে সামরিকভাবে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হবে। আর সেটি হতে যাচ্ছে একটি বড় ধরনের পদক্ষেপ।

এর আগে হন্ডুরাস থেকে একটি ক্যারাভ্যানে করে শরণার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রের দিকে রওনা হয়েছে, এমন খবর প্রকাশের পর দেশটিকে দেয়া সহযোগিতা বন্ধ করে দেয়া হবে বলে হুমকি দিয়েছেন ট্রাম্প।-খবর বিবিসি অনলাইন। যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত নিরাপদ করার জন্য এর আগের দুজন প্রেসিডেন্ট ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করেছিলেন।

সীমান্তের শেষ সীমা প্রহরার জন্য প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা শত শত সেনা পাঠিয়েছিলেন।

প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ সীমান্তে অপারেশন জাম্প স্টার্ট শুরু করেছিলেন আর তাতে সীমান্ত টহল সাহায্য করার জন্য হাজার হাজার সেনা পাঠিয়েছিলেন।

বাল্টিক দেশসমূহের নেতাদের সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজের পর সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, মেক্সিকো যতদিন সীমান্তে পথে অবৈধ মানবপাচার বন্ধ না করবে, ততদিন পর্যন্ত উত্তর আমেরিকা মুক্তবাণিজ্য চুক্তি নাফটার ভবিষ্যৎ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

সকালে ট্রাম্প একটি টুইট করেন, যেখানে হন্ডুরাস থেকে ক্যারাভ্যানে করে রওনা দেয়া শরণার্থীদের নিয়ে তৃতীয়বারের মতো করা টুইটে তিনি লেখেন, মেক্সিকো সীমান্ত হয়ে এই শরণার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকে পড়তে চায়।

এবং দুর্বল সীমান্ত আইনের কারণে সেটি ঘটার সুযোগ লোকে নেবে।কিন্তু সেই ক্যারাভ্যান পৌঁছানোর আগেই থামানোর ওপর জোর দেন তিনি।

এ নিয়ে ফক্স নিউজে প্রচারিত একটি প্রতিবেদন দেখার পর প্রথম টুইটটি তিনি করেন রোববার। গত কয়েক দিন ধরে অভিবাসীবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এ জন্য ডেমোক্র্যাটদের দোষারোপ করে তিনি বলছেন, তারাই সীমান্ত খুলে দিয়ে অভিবাসী, মাদক আর অপরাধের বিস্তার ঘটাতে দিয়েছে।

মেক্সিকো সীমান্তে প্রাচীর কবে বানাবে?
মেক্সিকো সীমান্তে একটি বড় ও সুন্দর দেয়াল বানাবেন, এটি ছিল ট্রাম্পের অন্যতম নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি।

কিন্তু এখন পর্যন্ত সিনেট ও কংগ্রেসে পর্যাপ্ত সমর্থন নিয়ে এ বিষয়ে বড় কোনো অগ্রগতি হয়নি।

তবে গত মাসে ট্রাম্পের সই করা একটি বড় সরকারি ব্যয়ের বিলে দেখা গেছে, সীমান্তে দেয়াল তৈরির জন্য ফেডারেল সরকারকে ১৬১ কোটি ডলার দেয়া হয়েছে। কিন্তু দেয়াল বানাতে হোয়াইট হাউস আড়াই হাজার কোটি ডলার চাইলেও অর্থায়নবিষয়ক কংগ্রেস কমিটি তা অনুমোদন করেনি। বরাদ্দকৃত বাজেটের বড় অংশটি বর্তমানে সীমান্তের যে তিন হাজার কিলোমিটারের বেশি এলাকায় দেয়াল আছে, তার সংস্কারে ব্যয় করা হতে পারে।

এর বাইরে গত মাসে পেন্টাগন নিশ্চিত করেছে, দেয়াল তৈরির জন্য পেন্টাগনের কাছ থেকে অর্থ সাহায্য নেয়ার ব্যাপারে ট্রাম্প প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে প্রাথমিক কথাবার্তা বলেছেন।

এদিকে সোমবার ডেমোক্র্যাটরা পেন্টাগনপ্রধানের কাছে লেখা এক চিঠিতে জানিয়েছেন, পেন্টাগনের বাজেট প্রতিরক্ষা কাজে ব্যয় করা ছাড়া অন্য কোনো কাজে লাগানোর বৈধ এখতিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের নেই। সুত্রঃ যুগান্তর।

Leave a Reply