রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা

0
6

রমজান মাসে সরকারি অফিস সময় সকাল ৯টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত। এ অফিস সময় নির্ধারণ করে গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘হিজরি ১৪৪০ (২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ) সালের পবিত্র রমজান মাসে সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের জন্য অফিস সময়সূচি নির্ধারণ’ প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ফিরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. শামসুল আরেফিন বলেন, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৭ বা ৮ই মে থেকে মুসলমানদের সিয়াম সাধনার মাস রমজান শুরু হবে। বর্তমানে অফিস সময় সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। রমজান মাসে সরকারি অফিস সময় সকাল ৯টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত। বেলা সোয়া ১টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত জোহরের নামাজের বিরতি থাকবে। সাপ্তাহিক ছুটি থাকবে যথারীতি শুক্র ও শনিবার।

সিনিয়র সচিব বলেন, ব্যাংক, বীমা, আর্থিকপ্রতিষ্ঠান, ডাক, রেলওয়ে, হাসপাতাল ও রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পপ্রতিষ্ঠান, কলকারখানা এবং অন্যান্য জরুরি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান এ সময়সূচির আওতার বাইরে থাকবে। এসব প্রতিষ্ঠান তাদের নিজস্ব আইন অনুযায়ী জনস্বার্থ বিবেচনা করে সময়সূচি নির্ধারণ ও অনুসরণ করবে। সুপ্রিম কোর্ট ও এর আওতাধীন সব কোর্টের সময়সূচি সুপ্রিম কোর্ট নির্ধারণ করবে। এদিকে সাংস্কৃতিক বিনিময়ে লেবাননের সঙ্গে চুক্তি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এ জন্য ‘এগ্রিমেন্ট অন কালচারাল কো-অপারেশন বিটুইন দ্য গভর্নমেন্ট অব দ্য রিপাবলিক অব লেবানন অ্যান্ড দ্য গভর্নমেন্ট অব দ্য পিপলস রিপাবলিক অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক খসড়া অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. শামসুল আরেফিন বলেন, চুক্তির উদ্দেশ্য হলো দু’দেশের মধ্যে সংস্কৃতি, কৃষ্টি ও ঐতিহ্য সংরক্ষণে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি, দু’দেশের সাংস্কৃতিক কার্যক্রম এবং বিশেষজ্ঞ বিনিময়ের মাধ্যমে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদার করা। সভা, সেমিনার ও প্রদর্শনী আয়োজনের মাধ্যমে উভয় দেশের বিশেষজ্ঞদের অভিজ্ঞতা বিনিময় হবে। চারুকলা, শিল্পকলা, শিল্প-সাংস্কৃতি ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক মাধ্যমে উভয় দেশের সাংস্কৃতিকে সমৃদ্ধ করা হবে। সিনিয়র সচিব বলেন, চুক্তির আওতায় প্রকাশনা ও গবেষণা ইত্যাদি কাজে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং সাংস্কৃতি শিল্পকলা সংরক্ষণে দু’দেশের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি করা হবে। লেবাননে অস্থিরতা চলছে। এমন একটি দেশের সঙ্গে কেন এ ধরনের চুক্তি করা হচ্ছে- জানতে চাইলে শামসুল আরেফিন বলেন, সাংস্কৃতিক চুক্তি তো অনেক দেশের সঙ্গে হয়েছে। লেবানন সাংস্কৃতিকভাবে অনেক উন্নত একটি দেশ। সেই বিবেচনায় লেবাননের সঙ্গে সাংস্কৃতিক চুক্তি হচ্ছে। এছাড়া বৈঠকে ‘বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্র আইন, ২০১৮’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

// সূত্রঃ মানবজমিন//

Leave a Reply