‘রাজি’ ট্রেলারে শোরগোল সিনেপাড়ায়-ভিডিও দেখুন

0
31

মুম্বই: কিছু কিছু কাহিনি থেকে যায় গোপনে। কিছু গল্পের নায়ক পায় না হিরোর তকমা। ফেমাস হওয়া তো দূরের কথা, তাঁদের নামও জানে না কেউ। শুধু তাঁদের স্মৃতি থেকে যায় মনের অন্তরে। স্মৃতির সেই ঝাঁপি মাঝে মাঝে খুলে যায় হাট করে। সেখান থেকে বেড়িয়ে আসে অনামী-অচেনা নায়ক-নায়িকারা।

লেখক হরিন্দর সিক্কার-এর এমনই এক আনফেমাস হিরোইন এবার বিশ্বের দরবারে। যে গল্প এতদিন ছিল অজানা। তা এবার পেল আকাশ। ভারতীয় গুপ্তচর রাজির জীবন ফুটে উঠছে সেলুলয়েডে। সদ্য মুক্তি পেয়েছে তার ট্রেলার। যা দেখার পর তর সইছেনা কারও। সবার মুখে একটাই কথা, “আমরা কিছুই জানি না রাজির সম্পর্কে। অপেক্ষায় রইলাম রাজিকে জানতে। রাজিকে চিনতে।”

সালটা ১৯৭১। ভারতের সঙ্গে পাকিস্থানের সম্পর্ক রণং দেহি। সে সময় ভারতের চোখ ও কান হয়ে পাকিস্থান যান ‘রাজি’। বিয়ে করেন পাকিস্থানে এক সেনা নায়ককে। বাঘের খাঁচায় ঢুকে সেখান থেকে খবর জোগাড় করতেন তিনি। ভারতের হাতে তুলে দেন এমন কিছু তথ্য যা প্রাণ বাঁচায় হাজার হাজার ভারতবাসীর।

তবে এই পথ ছিল কন্টকাবৃত। যেখানে একটা ভুল, একটু অসাবধানতা মৃত্যুর মুখে দাঁড় করিয়ে দেবে তাঁকে। সব কিছু জেনেও এক বাবা তাঁর আদরের মেয়ের বিয়ে দেন পাকিস্থানি যুবকের সঙ্গে। মেহেন্দির নক্সায় নতুন জীবনের স্বপ্নের নয়! লাল হয়ে ওঠে দেশপ্রেম। কিন্তু এসব কাহিনি গুপ্তচরের মতো গুপ্ত থেকে যায়।

তবে ভারতীয় সেনাদের গুপ্তকাহিনির ভান্ডার থেকে এই দুঃসাহসী মেয়ের কথা দু’মলাটে তুলে ধরেন লেখক হরিন্দর সিক্কার। নাম ‘কলিং সেহমত’। যা বায়োপিকের জমানায় মনে ধরে মেঘনা গুলজারের। রুপোলি পর্দায় এন্ট্রি নেয় সেহমত। যার ট্রেলার হইচই ফেলে দিয়েছে গোটা সিনে ইন্ডাস্ট্রিতে। কেউ লিঙ্ক শেয়ার করছেন। কেউবা কমেন্ট বক্সে ‘রাজি’ প্রশংসায় পঞ্চমুখ!

এই ছবিতে রাজির নাম ভূমিকায় আলিয়া ভাট। মিষ্টি মুখের আড়ালে সাহসী রাজির চরিত্রে তিনি যে আরও একবার মাইলস্টোন ছুঁতে চলেছেন, তা ট্রেলারের কয়েক ঝলকে বেশ ভালো মতোই বোঝা যাচ্ছে। জংলি পিকচার্স ও ধর্মা প্রোডাকশনের যৌথ প্রযোজনায় ১১ মে পর্দা জুড়ে মুক্তি পাচ্ছে ‘রাজি’।

Leave a Reply