শেখ হাসিনা সরকারের ধারাবাহিকতা চায় সৌদি আরব!

0
18
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বুধবার সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গে বৈঠক করেন। রিয়াদ, ১৭ অক্টোবর। ছবি: পিআইডি/প্রথম আলো।

বাদশাহ সালমানের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক
শেখ হাসিনা সরকারের ধারাবাহিকতা চায় সৌদি আরব

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব অগ্রগতির প্রশংসা করে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ বর্তমান সরকারের ধারাবাহিকতা থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

গতকাল বুধবার স্থানীয় সময় দুপুরে রিয়াদের রাজপ্রাসাদে শেখ হাসিনার সঙ্গে বাদশাহ সালমানের বৈঠক হয়। পরে তারা মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন। বৈঠকের বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের অবহিত করেন। তিনি বলেন, ‘বাদশাহ বলেছেন, বাংলাদেশে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা দরকার। এতে বোঝা যায়, তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের ধারাবাহিকতার কথা বলেছেন। এটা হলে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরদার হবে।’ খবর বাসস, ইউএনবি ও বিডিনিউজের।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার সৌদি আরবের রিয়াদের রাজকীয় প্রাসাদে বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গে একান্ত বৈঠকের শুরুতে কুশল বিনিময় করেন- //ফোকাস বাংলা/সমকাল//

শহীদুল হক বলেন, সৌদি বাদশাহর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর এবারের বৈঠকও অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ ও উষ্ণ পরিবেশে হয়েছে। ফিলিস্তিনের প্রতি বাংলাদেশের সমর্থনেরও প্রশংসা করেছেন বাদশাহ। পররাষ্ট্র সচিব জানান, বাদশাহ বারান্দায় এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে ভেতরে নিয়ে যান। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বলেছেন, এটা আপনার বাড়ি, আপনি সব সময় এখানে আমন্ত্রিত। শহীদুল হক বলেন, মধ্যাহ্নভোজের সময় বাদশাহ নিজে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে খাবার ঘরে যান। তিনি সৌদি আরবের বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী খাবার দেখিয়ে সেগুলোর নাম প্রধানমন্ত্রীকে বলেন। বৈঠকে বাদশাহ সালমান অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা খাতে দুই দেশের সহযোগিতার সুযোগগুলো আরও কাজে লাগানোর ওপর জোর দেন বলে জানান পররাষ্ট্র সচিব।

পরে রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের নতুন ভবনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নিজেও সৌদি বাদশাহর সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘সৌদি আরবের সঙ্গে আমাদের চমৎকার সম্পর্ক। খুব ভালো আলোচনা হয়েছে। সৌদি বাদশাহকে সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছি। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে আসবেন।’

উন্নয়নের গতি কেউ থামাতে পারবে না- প্রধানমন্ত্রী :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রা শুরু করেছে এবং এই উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না। গতকাল বিকেলে রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের নিজস্ব জায়গায় এবং নিজস্ব অর্থে নবনির্মিত চ্যান্সেরি ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, সামনে নির্বাচন এবং জনগণ ভোট দিলে তিনি আবার সরকারে আসবেন, নচেৎ নাই। বাংলাদেশের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন করতে পারায় তার কোনো আফসোস থাকবে না বলে উল্লেখ করেন।

তিনি বাংলাদেশ দূতাবাসকে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সমস্যা সমাধানে মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই চ্যান্সেরি ভবনটা যখন তৈরি করা হয় তখনই আমার নির্দেশনা ছিল, এখানে যারা সেবা নিতে আসবেন, সেদিকে লক্ষ্য রেখে বন্দোবস্ত রাখার।’

অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কে এস এ গোলাম মসিহ বক্তৃতা করেন। প্রায় ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে এ ভবনে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থাসহ সেবাপ্রত্যাশীদের জন্য ৫১০ বর্গমিটারের একটি শেডও নির্মাণ করা হয়েছে।

সৌদি উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, এ ব্যাপারে তার সরকার সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবে। গতকাল সকালে বাদশাহ সৌদ রাজপ্রাসাদে সৌদি আরবের ব্যবসায়ীদের সংগঠন সৌদি চেম্বার ও রিয়াদ চেম্বার অব কমার্সের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘আমি পারস্পরিক স্বার্থেই আপনাদের বাংলাদেশে ব্যবসা, প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবনী চিন্তা নিয়ে আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আমরা যাতে আমাদের উন্নয়ন অভিযাত্রায় একে অপরের হাতে হাত রেখে চলতে পারি।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সৌদি উদ্যোক্তাদের দেশের বিভিন্ন উদীয়মান খাত, যেমন- পুঁজিবাজার, বিদ্যুৎ, জ্বালানি, টেলিকমিউনিকেশন এবং তথ্যপ্রযুক্তি, পেট্রোকেমিক্যাল, ওষুধ শিল্প, জাহাজ নির্মাণ এবং কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ খাতে বিনিয়োগের আমন্ত্রণ জানাচ্ছে।

সিএসসির চেয়ারম্যান সামি এ আলাবাদি, সিএসসির মহাসচিব সৌদ এ আলমাসারি এবং বাংলাদেশে সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত আবদুল্লাহ এইচ এম আল-মুতাইরি এ সময় উপস্থিত ছিলেন। আরও উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, শেখ হাসিনার বেসরকারি খাতবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বিডার চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল হক, পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ প্রমুখ।

সৌদির সঙ্গে পাঁচ সমঝোতা স্মারক সই :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে শিল্প ও বিদ্যুৎ খাতে সহযোগিতা-সংক্রান্ত পাঁচটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। বুধবার সকালে রিয়াদে কিং সৌদ প্যালেসে সৌদি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠকের পর সমঝোতা স্মারকগুলো স্বাক্ষরিত হয়।

বাংলাদেশে ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন বিসিইসি ও সৌদি ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ডাইমেনশনের মধ্যে একটি এবং সৌদি হানওয়া প্রকৌশল ও নির্মাণ সংস্থা এবং বাংলাদেশের শিল্প মন্ত্রণালয়ের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ ও সৌদি আরবের আল বাওয়ানির মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। বাংলাদেশের পক্ষে প্রতিটি সমঝোতা স্মারকে সই করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান।

সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে মঙ্গলবার সৌদি আরব পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। আজ বৃহস্পতিবার তিনি মক্কায় ওমরাহ পালন করবেন। সফর শেষে শুক্রবার তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।
// সুত্রঃ সমকাল//

Leave a Reply